দেশের সব থেকে সুন্দর গ্রাম | পান্থুমাই ভ্রমণ

আমাদের জীবন খুবই স্বল্প সময়ের। এই স্বল্প সময়ে আমরা পৃথিবীর সৌন্দর্যকে পুরোপুরি উপভোগ করতে চাই। আমরা এই সৌন্দর্যের টানে ছুটে চলি হাজার মাইল দূরে।হাজার মাইল দূরের গল্প বলব না আজ।বলব আমাদের দেশের সৌন্দর্যের গল্প। আমাদের দেশেও রয়েছে অপরূপ সৌন্দর্য্যের লীলাভূমি। সেই লীলাভূমি আর কোথাও নয় সিলেটে অবস্থিত দেশের সব থেকে সুন্দর গ্রাম।

আপনি জানেন কি দেশের সব থেকে সুন্দর গ্রাম কোনটি? জানেন না তো।আমিই বলছি- “পানতুমাই” বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর গ্রাম। পানতুমাই সিলেট জেলার পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নের একটি গ্রাম যা ভারত সীমান্তের মেঘালয় পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত। পানতুমাই গ্রামের স্থানীয় নাম “পাংথুমাই” কিন্তু সঠিক উচ্চারণ “পানতুমাই”। অনেকে এই গ্রামকে পান্থুমাই ও বলে থাকে।

পাহাড় ঘেঁষা আঁকাবাঁকা রাস্তাই পানতুমাই গ্রামের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। আঁকাবাঁকা পথ পাড়ি দিয়ে সহজেই হারিয়ে যেতে পারেন প্রকৃতির মাঝে। মনে হবে আপনি এক স্বর্গের ভিতরে বসবাস করছেন।গ্রামের শেষে পাহাড়ি গুহা থেকে হরিণীর মতোই লীলায়িত উচ্ছল ভঙ্গিমায় ছুটে চলেছে ঝর্ণার জলরাশি। দূর থেকে দেখা মিলে শুভ্র জলের এক অদ্ভুত অপ্সরীর।

ভারতের মেঘালয়ের গহীন অরণ্য থেকে বাংলাদেশে নেমে এসেছে অপরূপ ঝর্ণাধারা। জঙ্গলের মাঝখানে উঁকি দিচ্ছে রূপবতী ঝর্ণা পান্থুমাই। বড় বড় পাথরের গা বেয়ে অনেক উঁচু থেকে ইংরেজি “S” অক্ষরের মতো। স্থানীয় নাম ফাটাছড়ির ঝর্ণা কেউ কেউ একে ডাকেন বড়হিল ঝর্ণা বলে। ঝর্ণাটি ভারতের মধ্যে পড়লেও পিয়াইন নদীর পাড়ে দাঁড়িয়ে খুব কাছ থেকে উপভোগ করা যায় ঝর্ণাটি। সীমানার কাছাকাছি যাওয়া বিপদজনক। তবে কাছে না গিয়েও ঝর্ণার সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে পারবেন সহজেই।কিছু দূর সামনে এগিয়ে গেলে দেখা পাবেন সতর্কবাণী লেখা সাইন বোর্ড “সাবধান, সামনে ভারত, জনসাধারণের প্রবেশ নিষেধ”। এখানে বিজিবির কোনো চৌকি নেই। তাই সীমানার কাছাকাছি যাওয়া বিপদজনক।

কখন যাবেন: সিলেটে আপনি সারা বছরই ঘুরতে যেতে পারবেন তবে পান্থুমাই এর আসল সৌন্দর্য উপভোগ করতে হলে অবশ্যই বর্ষাকালে যেতে হবে।

কিভাবে যাবেন: পান্থুমাই যাওয়ার জন্য প্রথমেই সিলেট নগরীর আম্বরখানা পয়েন্ট যেতে হবে। সেখানে বিমানবন্দর রোডের দিকে সিএনজি স্টেশন পাবেন। সিএনজি রিজার্ভ করে হাদারপার বাজারে যাবেন। হাদারপার বাজারটি খুব একটা বড় না আবার ছোটও না। মোটামুটি সবকিছুই পাবেন। খাবার, পানি, কাপড় সবই কিনতে পাওয়া যায়। হাদারপার বাজারেই পান্থুমাই যাওয়ার নৌকা পাওয়া যায়।

কোথায় থাকবেন: পানতুমাইয়ে কোন থাকার ব্যবস্থা নেই। তবে রাতে থাকতে চাইলে স্থানীয়দের সহায়তা নিয়ে থাকতে পারবেন। সিলেট শহর থেকে সকালে গিয়ে সারাদিন ঘুরে বিকেলেই ফিরে আসতে পারবেন। সে জন্য আপনার থাকার ব্যবস্থা হতে পারে সিলেট শহরের আপনার পছন্দ মতো কোন হোটেলেই।

ভ্রমণ টিপস ও সতর্কতা

  • খরচ কমাতে দলগত ভাবে ভ্রমণ করুন।
  • নৌকা ও সিএনজি ভাড়া করতে ভালো মত দামাদামি করুন।
  • পানিতে নামার সময় সতর্ক থাকুন।
  • বর্ষাকালে অল্প পানির স্রোতের গতিও অনেক বেশি থাকে, সেদিকে খেয়াল রাখবেন।
  • বিছানাকান্দিতে পানিতে অনেক পাথর তাই হাঁটা চলায় অতিরিক্ত সাবধান থাকুন।
  • দয়া করে পরিবেশ ও প্রকৃতির ক্ষতি হয় এমন কিছু করবেন না।
  • স্থানীয়দের সাথে বিনয়ী থাকুন।
  • সন্ধ্যার আগেই সিলেট শহরে ফিরে আসুন।

Md. Tanvir Hossain

Leave a Reply