শাড়ির সাথে অলঙ্কার নির্বাচন

ঘরের বাইরে অনেকেই অনেক কাজে বের হয়ে থাকেন। অনেকেই অফিসে আবার কেউ কোনো অনুষ্ঠানেও যান। সেক্ষেত্রে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে পোশাক। তবে পোশাকের সঠিক বাছাই হলেও গয়না নিয়ে পড়তে হয় ঝামেলায়।

কারণ সব পোশাকের সঙ্গে তো আর সব গয়না মানায় না। অনেকের ধারণা, বেশি বেশি গয়না পরলেই হয়তো দেখতে সুন্দর লাগবে। যা একদমই ভুল। তাই গয়না বাছুন ভেবেচিন্তে, শাড়ির ধরন অনুযায়ী। আপনাদের সুবিধার্থে চলুন জেনে নেয়া যাক কোন শাড়ির সঙ্গে কেমন গয়না মানানসই-

শাড়ি যদি সিল্ক বা এন্ডি সিল্ক হয় তবে গয়নাটা হতে হবে জমকালো। এ ক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন অ্যান্টিকের ব্রাশ গয়না। অ্যান্টিকের বাইরে পোর্সেলিন ও সিরামিকের গয়নাও এমন শাড়ির সঙ্গে যায়। এ ছাড়া সিরামিকের তৈরি লকেট, কানের দুল ও মেটালের চুড়িও মানায়।

সুতির ব্লক বা ভেজিটেবল ডাইংয়ের শাড়ির অনেক চল। এ ধরনের শাড়ির সঙ্গে আদিবাসী গয়না কিংবা গলায় বিভিন্ন রঙের পুঁতির মালা, কানে পালকের দুল মানাবে। আজকাল ময়ূর থেকে শুরু করে সব ধরনের পাখির পালক দিয়েই তৈরি গয়না পাওয়া যাচ্ছে। এ ছাড়া এ ধরনের শাড়ির সঙ্গে কাঠের রঙিন গয়নাও পরতে পারেন।

কাতান বা ব্রকেটের শাড়ির সঙ্গে হালকা মেটালের গয়না পরতে পারেন। এ ছাড়া রুপা ও গোল্ড প্লেটেড গয়নাও মানায়। জর্জেটের শাড়ির সঙ্গে কাপড়ের মালার চলটা একেবারেই নতুন। এ ছাড়া ক্রিস্টাল পুঁতি বা মুক্তার কয়েক লহরের মালাও চলছে। নেটের ফেব্রিকের সঙ্গে মুক্তা বসানো, এ ধরনের ফিউশনধর্মী গয়নাগুলোও পরতে পারেন। এ ছাড়া রুবি, পান্না, প্রবালের মালাও বেশ চলছে।

তাঁতের শাড়ির সঙ্গে একটু জাঙ্ক বা পশ্চিমা ধাঁচের গয়না পরতে পারেন। হাতে চুড়ি ছাড়াও মোটা বালা বা ব্রেসলেট, গলায় নেকলেস অথবা বড় কোনো লকেট পরতে পারেন। সাদামাটা সুতির একরঙা শাড়ির সঙ্গে কড়ি, সুতা ও মেটালের গয়না মানায়। হাতে বালা বা বড় ডায়ালের ঘড়ি পরলেও ভালো দেখাবে।

খেয়াল রাখুন

  •   সব ধরনের গহনা সব শাড়ির সঙ্গে মানাবে না। তাই পরার আগে ভালোভাবে জেনে নিন কোন শাড়ির সঙ্গে আপনি কোন গহনা পরবেন।
  •   বিয়ে কিংবা জমকালো আয়োজনে শাড়ির সঙ্গে ভারী গহনা বেছে নিন।
  • দিনের কোনো অনুষ্ঠানে শাড়ির সঙ্গে হালকা গহনা পরাই ভালো।
  • বয়স বিবেচনা করে শাড়ি ও গহনা কেমন হবে এবং কী রং হবে জেনে নিন।
  • একসঙ্গে অনেকগুলো গহনা না পরাই ভালো। গহনা কানে বা গলায় পরলে সে ক্ষেত্রে হাতে একটি বালা বা ব্রেসলেট পরুন। এ ছাড়া হাতভর্তি চুরি পরলে গলায় হালকা গহনা পরুন। অর্থাৎ ভারী গহনা হাত, কান ও গলায় একসঙ্গে না পরাই ভালো। এতে বেমানান লাগে।

Leave a Reply