মাহজাবিন হক: প্রথম বাংলাদেশী নারী হিসেবে  নাসার স্পেস সিস্টেম সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার পদে

অদম্য ইচ্ছাশক্তি বাঙ্গালি কন্যা মাহজাবীন হককে পৌঁছে দিয়েছে সাফল্যের দ্বারপ্রান্তে। প্রথম বাংলাদেশী নারী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসার স্পেস সিস্টেম সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার পদে যোগ দিচ্ছেন মাহজাবিন হক। সেই সঙ্গে বাংলাদেশকে নিয়ে গেলেন এক নতুন উচ্চতায়। এক নতুন মাত্রায়। আরও একবার বিশ্বমঞ্চে তুলে ধরলেন লাল সবুজের পতাকা। তাঁর অর্জনে গর্বিত পুরো দেশ!

mahjabin-haque-bangladeshi-woman-at-nasa

‘তখন আমি তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ি। টেলিভিশনে একটা অনুষ্ঠান দেখে নাসায় কাজ করার খুব ইচ্ছা হয়েছিল। তখন থেকেই স্বপ্ন দেখার শুরু।’ জানিয়েছিলেন মাহজাবীন হক।
অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত সিলেটেই লেখাপড়া করেছেন তিনি। দেশে মাহজাবিন সিলেটের খাজাঞ্চিবাড়ি স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন।
পেইন্টিং ও ডিজাইনে পারদর্শী মাহজাবীন হক ২০০৯ সালে পিতা-মাতার সাথে যুক্তরাষ্ট্রে আসেন। দু’বছর নিউ ইয়র্ক সিটিতে ছিলেন। ২০১১ সালে মেশিনগানে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করার পর তিনি ভর্তি হন হামট্রাম্ক হাই স্কুলে।

বাবা চাইতেন মেয়ে চিকিৎসক হোক। বাবার স্বপ্ন পূরণ করতে প্রি-মেডিকেলে ক্লাসও শুরু করেছিলেন মাহজাবীন হক। শুরুতে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করেন। কিন্তু ছেলেবেলার স্বপ্নটা তখনো ভেতরে জেগে ছিল। অতএব ২০১৪ সালে মেডিকেল স্কুল ছেড়ে ভর্তি হন মিশিগানের ওয়েইন স্টেট ইউনিভার্সিটির কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে।
পড়ার পাশাপাশি একাধিকবার শিক্ষানবিশ (ইন্টার্নি) হিসেবে কাজের অভিজ্ঞতা হয়েছে তাঁর। প্রথমে যুক্তরাষ্ট্রের বিখ্যাত পিৎজা কোম্পানি লিটল সিজারস করপোরেটের প্রধান কার্যালয়ে শেয়ারপয়েন্ট ডেভেলপার হিসেবে কাজ করেন।

mahjabin-haque-bangladeshi-woman-at-nasa

ইউনির্ভাসিটিতে অধ্যয়নকালেই তিনি দুই দফায় টেক্সাসের হিউস্টনে অবস্থিত নাসার জনসন স্পেস সেন্টারে ইন্টার্নশিপ করেছেন। প্রথমে তিনি ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে মে মাস পর্যন্ত নাসার শিক্ষানবিশ ডেটা অ্যানালিস্ট ছিলেন। পরে এ বছর জানুয়ারি থেকে মে মাস পর্যন্ত নাসার মিশন কন্ট্রোল সেন্টারে শিক্ষানবিশ সফটওয়্যার প্রকৌশলী হিসেবে কাজ করেন। শিক্ষানবিশদের এই দলে একমাত্র বাংলাদেশি ছিলেন তিনি।

মাহজাবীন হক জানান, দুই দফায় দীর্ঘ ৮ মাস ২টি গুরুত্বপূর্ণ বিভাগে কাজের মাধ্যমে অনেক অভিজ্ঞতা অর্জন করার পর তিনি সাম্প্রতিক সময়ে নাসার মিশন কন্ট্রোল সেন্টারে (এমসিসি) সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে নিয়োগ পান। মিশন কন্ট্রোল হলো নাসার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিল্ডিং যেখান থেকে নাসা রকেট লঞ্চ নিয়ন্ত্রণ করে।

mahjabin-haque-bangladeshi-woman-at-nasa

মাহজাবীন হক শুধু একজন সফল শিক্ষার্থীই নন, তিনি একজন ভালো সংগঠকের পাশাপাশি নাচে গানেও সমান পারদর্শী। শিক্ষানবিশ হিসেবে যখন ছিলেন, সেখানে একমাত্র বাংলাদেশি ছিলেন তিনি। সে সময় বিভিন্ন অনুষ্ঠানে নাসার রকেট পার্কে বাংলা গান গেয়েছেন, বাংলা গানের সঙ্গে নেচেছেনও মাহজাবীন।
ইউনির্ভাসিটিতে অধ্যয়নকালে তিনি ২০১৬ সালে সহপাঠী ও বাঙালি শিক্ষার্থীদের নিয়ে গঠন করেন বাংলাদেশ স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন (বিএসএ)। শুরুতে সেক্রেটারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরের বছর প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। প্রত্যক্ষ ভোটে প্রতি বছর এ নির্বাচন হয়ে থাকে। তিনি প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালনকালে ভল্টারিং কার্যক্রম চালু করেন। এই কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীরা কিছু অর্থ উপার্জনের সুযোগ লাভ করেছে।


আরো পড়ুন ……


আরো পড়ুন



মাহজাবীন হক এর পৈত্রিক নিবাস সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার কদমরসুল গ্রামে হলেও তারা সিলেট নগরীর কাজীটুলাস্থ হক ভবনের স্থায়ী বাসিন্দা।
পিতা সৈয়দ এনামুল হক কর্মসূত্রে দেশে অবস্থান করছেন। তিনি পূবালী ব্যাংকের সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার।
মাহজাবীন হক বর্তমানে স্থায়ীভাবে মিশিগানে বসবাস করছেন। সাথে আছেন মা ফেরদৌসী চৌধুরী যিনি শুরু থেকেই মেয়ের পাশে আছেন।
দুই ভাইবোনের মধ্যে মাহজাবীন বড়। একমাত্র ছোট ভাই সৈয়দ সামিউল হক যিনি বর্তমানে ইউএস আর্মিতে আছেন।

নাসায় যোগ দিতে হলে পরীক্ষার ফল নাকি খুব গুরুত্বপূর্ণ নয়, সে কথা জোর দিয়েই বললেন মাহজাবীন হক। ‘নাসা চায় অলরাউন্ডার। খুব ভালো রেজাল্ট থাকতে হবে তা নয়। বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক কার্যক্রমে যুক্ত হতে হবে। আর থাকতে হবে যেকোনো পরিস্থিতিতে নেতৃত্ব দেওয়ার গুণ,’ বলছিলেন তিনি।

mahjabin-haque-bangladeshi-woman-at-nasa

বাংলাদেশের মেয়েরা অনেক সময় সমাজের নানা বাধার কারণে পছন্দের বিষয়ে পড়ার সুযোগ পায় না, পছন্দের কাজটা করতে পারে না, সে কথা উল্লেখ করে নাসার এই সফটওয়্যার প্রকৌশলী এক সংবাদ মাধ্যমে জানিয়েছেন, ‘আমার অভিজ্ঞতা থেকে আমি তাঁদের মনের অবস্থাটা বুঝতে পারি। আমি প্রকৌশলে পড়া শুরু করার পর থেকে অনেক বাধার সম্মুখীন হয়েছি, এখনো হচ্ছি। তবু বলব, আপনি আপনার পছন্দের বিষয়কেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিন, সফলতা একদিন না একদিন আসবে।’

বাঙ্গালির অগ্রগতির এই জয়জাত্রায় আরও একটি আলোকিত মেধাবীর নাম মাহজাবীন হক।

লিখেছেন – সৈয়দা ফাতেমা আমীন

Leave a Reply