গয়নার বাক্সে গয়নার যত্ন

সঠিক পরিচর্যায় আপনার শখের গয়নাটি থাকুক সব সময় নতুনের মতো উজ্জ্বল, সুরক্ষিত ও দীর্ঘস্থায়ী। একটু যত্ন নিলেই আপনার গয়না উজ্জ্বল থাকবে অনেক দিন। প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ মানুষ অলংকার পরে থাকে। এর মধ্যে অধিকাংশ মানুষের সঠিক সংরক্ষণ পদ্ধতি সম্পর্কে জানা থাকে না। তাই আমাদের এই গাইডলাইন শুধু আপনার জন্য…

প্লাটিনামের গহনা

এই গহনা বেশ সুন্দর ও সূক্ষ্ম হয়। দীর্ঘ দিনের ব্যবহারেও প্লাটিনামের ক্ষয় প্রায় হয় না বললেই চলে। ফলে গয়না তৈরির পর বহু দিন চেহারা একই রকম থাকে। অন্যান্য ধাতুর তুলনায় গয়নার মধ্যে প্লাটিনামের যত্নে রাখা সহজ।
উষ্ণ গরম সাবান পানিতে ধুয়ে প্লাটিনামের গহনার উজ্জ্বলতা ধরে রাখা যায় সহজেই।

সোনার গয়না

সোনা অনেক দিনের পুরোনো হয়ে গেলে এর উজ্জ্বলতা কমে যায়।
* উজ্জ্বলতা বাড়াতে একটি পাত্রে পানির মধ্যে একটু গুঁড়া সাবান বা ডিটারজেন্ট পাউডার মিশিয়ে নিন। এবার সোনার গয়নায় একটু টুথপেস্ট লাগিয়ে মিশ্রণটির মধ্যে কিছুক্ষণ রেখে, টুথব্রাশ দিয়ে সাবধানে হালকাভাবে ঘষে নিন। দেখবেন আপনার গয়না আবার নতুনের উজ্জ্বলতা ফিরে পেয়েছে।
* এরপরও যদি কালচে ভাব থেকে যায়, তাহলে দোকানে নিয়ে পলিশ করাতে পারেন। কিন্তু মনে রাখবেন বারবার পলিশের ফলে স্বর্ণের স্বাভাবিক উজ্জ্বলতা হারিয়ে যায়।
* সোনার গহনা সামান্য আঘাতে বেঁকে যায়। তাই এ দিকটি বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে।

রুপার গয়না

রুপার গহনা এখন  বেশ ট্রেন্ডি এবং স্টাইলিশ। তবে রুপার গহনা কিছুটা ক্ষয়প্রবণ, তাই এর দরকার সময়ে সময়ে পরিস্কার করা। কিন্তু রুপার গয়না সুন্দর রাখা বেশি কষ্টকর নয়।
* আধা কাপ লেবুর রসের সঙ্গে এক টেবিল চামচ অলিভ অয়েল মেশান। এবার একটি কাপড়ে এই মিশ্রণ নিয়ে রূপার গয়নাগুলো ভালো করে মুছে নিন। এরপর হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
* একটি বাটিতে এক কাপ সাদা ভিনেগারের সঙ্গে দুই টেবিল চামচ বেকিং সোডা মিশিয়ে এর মধ্যে রূপার গয়না দুই থেকে তিন ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। এবার পানি দিয়ে ধুয়ে ভালো করে শুকিয়ে ফেলুন। এতে রূপার গয়নার কালচে দাগ সহজেই দূর হবে।
* একটি বিষয়ে খেয়াল রাখা প্রয়োজন, সোনার গয়নার বাক্সে রুপার গয়না রাখা ঠিক নয়। এতে রুপার রং নষ্ট হয়ে যেতে পারে।
* রুপা আবহাওয়ার আদ্রতার কারণে অন্যান্য ধাতুর তুলনায় খুব তাড়াতাড়ি জেল্লা হারিয়ে ফেলে ৷ তাই রুপাকে সবসময় আদ্রতা প্রতিরোধকারী পাত্র বা কন্টেনারে রাখা উচিত৷ অথবা জিপলক প্লাস্টিক ব্যাগে রুপার গয়না রেখে ভেতরে একটা ‘সিলিকন পাউচ’ রাখতে পারেন। যা রুপায় কালচেভাব পড়া থেকে বিরত রাখবে।

হীরার গয়না

হীরার গয়নার যত্ন নিলে সবসময় নতুনের মতো দেখায়।
* হীরার গয়না পরিষ্কার করতে হলে একটু টুথপেস্ট ব্রাশে নিয়ে ঘষে, পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
* তারপর পরিষ্কার করে টিস্যু দিয়ে মুড়িয়ে রাখুন অথবা নরম ফোম বা তুলার বাক্সে রাখুন।
* সোনা, রুপা, হীরা ও মেটালের গয়না একই বাক্সে রাখা উচিত নয়। আলাদা আলাদা বাক্সে টিস্যু দিয়ে মুড়িয়ে রাখুন।

প্রবাল ও মুক্তার গয়না

প্রবাল ও মুক্তার গহনার বিশেষ যত্নের দরকার হয়।
* মুক্তার গয়না ব্যবহার শেষে নরম, ভেজা কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন। তবে খুব বেশি ময়লা হলে পানিতে সামান্য সাবান মিশিয়ে নিয়ে ব্রাশ দিয়ে ঘষে পরিষ্কার করতে হবে।
মুক্তার গয়না প্লাস্টিকের ব্যাগে রাখা উচিত নয়।
* হেয়ার স্প্রে ও পারফিউম থেকে প্রবাল ও মুক্তোর গহনাকে দূরে রাখবেন ৷ কারণ এইগুলোর স্প্রে এই গহনায় লাগলে তার জৌলুস নষ্ট হয়ে যায়, অনেকক্ষেত্রে গহনাটাও নষ্ট হয়ে যায়।
* মুক্ত এমনিতেই খুব ডেলিকেট হয়, তাই এর ঠিকমতো দেখাশোনা করা না হলে খুব সহজেই এটার স্ক্যাচ পরে যায়। তাই মুক্তার গহনা ব্যবহার করার পর আপনারা নরম প্যাকেট বা প্ল্যাস্টিকের ব্যাগে যত্ন-সহকারে রাখবেন।

গোল্ড প্লেটের গহনা

স্বর্ণের দাম বেড়ে যাওয়ায় বর্তমানে গোল্ড প্লেট গহনার ব্যবহার বাড়ছে।
* এই গহনা ব্যবহার শেষে টিস্যু দিয়ে মুড়িয়ে যত্ন করে রাখতে হয়।
* গোল্ডপ্লেটের গয়না কালো হয়ে গেলে স্বর্ণের দোকানে নিয়ে গেলে আবার রং করিয়ে নেওয়া যায়। রং করার পর নতুনের মতো দেখাবে।
* ঘামে বা পানিতে ভিজলে এ গয়নার রং নষ্ট হয়ে যায়।

পাথরের গয়না

* ভারী কুন্দন, পাথর বসানো গয়না গরম পানিতে নরম কাপড় ভিজিয়ে ঘষে পরিষ্কার করলে গয়না ঝকঝকে হয়ে উঠবে।
* দামি পাথর বসানো গহনা পরে খেলাধুলা বা ভারী কাজ করবেন না।

ধাতব অ্যান্টিক গয়না

অ্যান্টিকের গয়না ব্যবহার না করলে বর্ণহীন দেখায়। তাই একফালি লেবু নিয়ে গয়না ঘষে পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেললে ঝকঝক করবে।

কাপড়ের গয়না

বিবিয়ানার ডিজাইনার লিপি খন্দকার বলেন, ‘যত্ন না নিলে কাপড়ের গয়না বেশি দিন টিকে না। কাপড়ের গয়না ব্যবহারের পর তা ভালোভাবে বাতাসে শুকিয়ে তুলে রাখুন। এ ধরনের গয়না না ভেজালেই ভালো। ব্যবহারের পর বাতাসে শুকিয়ে কাপড়ের গয়না সংরক্ষণ করুন।’

মাটির গয়না

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলার শিক্ষার্থী ও মাটির গয়না ডিজাইনার নীলা রহমান বলেন, ‘মাটির গয়না বাতাস ঢুকবে না, এমন বাক্সে মুখ বন্ধ করে রাখুন। তুলা বা টিস্যু দিয়ে পেঁচিয়ে রাখলে আরও ভালো।

পুঁতি, শামুক, ঝিনুক, কড়ি, পাট, বিডস ইত্যাদি দিয়ে তৈরি গহনা কাগজের বাক্সে ভালো থাকে।

  • গয়না ব্যবহারের পর ভালোভাবে পরিষ্কার করে রাখা উচিত।
  • মেকআপ করার পর গয়না পরিধান করুন, যেন মেকআপের উপকরণ গয়নায় না লেগে যায়।
  • গয়নার ওপরে সরাসরি পারফিউম স্প্রে করবেন না।
  • সুইমিং পুল এবং স্পা-তে অলংকার পরে থাকবেন না।
  • গহনা যে বাক্সে রাখবেন তা পরিষ্কার রাখুন, গুছিয়ে রাখুন। বাক্সে কোনও পেপার টিস্যু বা তুলা ব্যবহার করতে পারেন।

গয়নার বাক্স নির্বাচনের জন্য এই আর্টিকেলটি পড়ুন… গয়নার বাক্স নির্বাচন

Leave a Reply